ভিন্নধারার মাদকবিরোধী স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ নীল দংশন’

sottokantho জুন ০২, ২০১৭ Technology

বিশেষ প্রতিবেদক : একটি সমাজের পেছনের দৃশ্য নীল দংশন চলচ্চিত্রের যাত্রা শুরু। আমাদের সমাজে মাদক একটি ভয়াবহ রুপ নিতে যাচ্ছে। যার হাত থেকে বাচঁতে হলে এখনি আপনি ও আপনার পরিবার এবং সমাজকে রক্ষা করতে হবে। আইন প্রয়োগের সাথে সাথে সামাজিক ভাবে ও জন সচেতনতার লক্ষ্যে মাদকের মরণনেসা কিভাবে যুবসমাজকে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছে তারই কিছু বিষয় নিয়ে মূলত এই ফিল্ম টি নির্মান করতে সকল প্রকার সহযোগিতা ও নিবেদন করেছেন হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র। সমর্পন প্রোডাকসন এর ব্যানারে বরাবরই প্রযোজনা করেছেন চেম্বার অব কমার্স এর প্রেসিডেন্ট মোতাচ্ছিরুল ইসলাম। দেশের ৬৫ লাখ মানুষ মাদকাসক্ত। সচেতনতা বৃদ্ধি ও বিশেষ করে অভিভাবকদের সচেতন হওয়ার জন্যই মূলত নীল দংশন এর নির্মান। চিত্র নাট্য ও পরিচালনায় সাইফুদ্দিন জাবেদ। ভিন্নধারার এ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে পরিচালক সাইফুদ্দিন জাবেদ মনে করেন,- গতানুগতিক ধারার বাহিরে নতুনত্ব দিয়ে কাজটি করার চেষ্টা করেছি। গল্প ভাবনা ও এই প্রযোজনার পরিকল্পক হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র কাজটির নেপথ্যে থেকে যে সহায়তা করেছেন তাতে আমি অভিভূত। দেশ ও দেশের সংস্কৃতির প্রতি তার আন্তরিকতায় আমি মুগ্ধ।’‘সরকারের উচ্চপদস্থ একজন কর্মকর্তা হয়েও তাকে অর্পিত দ্বায়িত্বের পাশাপাশি স্ব উদ্যোগে সামাজিক ও গণ সচেতনতা মূলক নানা কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। দেশে মানুষ ও মানবিকতার প্রতি তার এই নিরন্তর ভালোবাসা সত্যি অনবদ্য। এই কাজটি আমরা প্রত্যেকে উপভোগ করেছি। আশাকরি, ছবিটি সবার ভেতরাত্মাকে ছুঁবে।’ আমরা চেষ্টা করেছি আমাদের সবকিছু দিয়ে ভাল কিছু করতে। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সিলেট অঞ্চল আমাদেরকে সহযোগিতা করেছেন। ফিল্ম এর এডিটিং এর কাজ চলছে। আসা করি কিছু দিনের মধ্যেই কাজটি সম্পন্ন করতে পারব। রঙ্গের দুনিয়ার পরিচালক অভিজ্ঞ ব্যক্তি মুক্তাদির ইবনে সালাম আমার এই কাজে গুনগত মান ঠিক রাখার জন্য আমার- সাথে থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা করেছেন, তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। যার কথা না বল্লেই নয়, শাকিলা ববি। আমাকে সব সময় সহযোগিতা করে আসছে, তাকে ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিনিয়র আরটিষ্ট টিভি অভিনেতা জুনা চৌধুরী, টিভি অভিনেত্রী আফরোজা আহমেদ। এতে প্রথমবারের মতো জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন মঞ্চ ও টেলিভিশন মিডিয়ার এই প্রজন্মের প্রতিভাদীপ্ত দুই অভিনয়শিল্পী খান আতিক এবং এমিলা হক। এ ছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ আহমেদ চৌধুরী তুহিন, ধীমান চন্দ, সুদিন আচার্য্য, ইয়াছিনুল হক (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, হবিগঞ্জ সদর মডেল থানা), মামুন আল ফারুক (পুলিশ পরিদর্শক), এস আই দৌস মোহাম্মদ, এস আই মির্জা, এস আই পার্থ সহ আরো অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *